টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ -সব মোবাইল এক সাথে

বর্তমান সময়ের বহুল ব্যবহৃত ফোন গুলোর মধ্যে টেকনো একটি কারণ এই ফোন বর্তমানে অনেক বেশী ব্যবহার শুরু হয়েছে। বিশেষ করে মিড রেঞ্জের ফোন হওয়াতে টেকনো মোবাইল ফোনের চাহিদা অনেক বেশী। তাই আজকে টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ অর্থাৎ বর্তমান বাংলাদেশে যে সমস্ত টেকনো ফোন রিলিজ হয়েছে সস্মত ফোনের দাম উল্লেখ করার চেষ্টা করবো।

মনে রাখবেন একটি ফোন কেনার পূর্বে সেই ফোনের শুধু দাম দেখে কেনা কোন মতেই উচিৎ নয় কারণ একটি ফোন ভালো পারফর্ম করে সেই ফোনের ফিচার এবং কনফিগারেশনের উপর ভিত্তি করে। এমন হতে পারে আপনি ১৫ হাজার টাকা খরচ করে একটি ফোন কিনলেন কিন্তু কিছুদিন পরে দেখা গেলো সেই ফোন আর আগের মত ব্যাকাপ দিতে পারছেনা। তাহলে বিষয়টি কেমন হবে?

একটু সময় নিয়ে আর্টিকেলটি পড়তে অনুরোধ জানাচ্ছি। কারণ অনেকেই রয়েছেন ফোনের দাম দেখেই ব্যাক করে দেন যার ফলে কোন ফোনটি নিজের বাজেটের মধ্যে বেটার হবে সেটি সেটি জানতে পারেনা। তাই সময় নিয়ে না পড়ে ব্যাক করে দিবেননা প্লিজ।

Tecno Pop 6 Pro

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ
Tecno Pop 6 Pro

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশটেকনো পপ ৬ মোবাইল ফোনটিতে ২জি, ৩জি এবং ৪জি সাপর্ট রয়েছে ও সেই সাথে ব্যবহার করা যাবে ডুয়াল ন্যানো সিম কার্ড।

ফোনটিতে রয়েছে ৬.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে যার সাথে ফিচার রয়েছে আইপিএস টাচ স্ক্রিন ও মিনিমাল নচ স্টাইল ও মাল্টি টাচ ফিচার। এদিকে ডিস্পের রেজুলেশন রয়েছে HD+ 720 x 1600 pixels এবং বডিতে গ্লাস ডিসপ্লে ও পুরো বডি থাকবে প্লাস্টিক।

ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে Dual 8 Megapixel + AI ক্যামেরা যেটি ব্যবহার করে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করা যাবে সেই সাথে সেলফি ক্যামেরা রয়েছে ৫মেগা পিক্সেল ও ভিডিও রেকর্ডিং ক্ষমতা ১০৮০ পিক্সেল।

টেকনোর এই ফোনে অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে Android 12 Go Edition (HiOS 8.6) এবং MediaTek Helio A22 (12 nm) চিপ্সেট সাথে রয়েছে Quad-core, up to 2.0 GHz প্রসেসর ফোনটিতে স্টোরেজ হিসাবে রয়েছে ২জি র‍্যাম ও ৩২ জিবি রম এবং চাইলে আলাদাভাবে ডেডিকেটেড মেমোরি কার্ড ব্যবহার করা যাবে।

এদিকে ফোনটিতে সেইকিউরিটির জন্য রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট ও ফেস আনলক। চার্জ ব্যাকাপ দেয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে Lithium-polymer 5000 mAh (non-removable) ব্যাটারি এবং চার্জ করার জন্য 10W Fast Charging এর চার্জার। ফোনটি পাওয়া যাবে Black, Blue এই দুটি কালারে।

ভালো এবং খারাপ দিক

সল্প বাজেটের এই ফোনটিতে সমস্ত ফিচার অনেক ভালো রয়েছে কারণ এই দামের মধ্যে ৬.৬ ইঞ্চি ডিসপ্লে ও ৮ মেগাপিক্সেল সাথে এআই ফিচার ক্যামেরা। অপারেটিং সিস্টেম আপডেটেড ভার্সন রয়েছে এবং চিপ্সেটও অনেক ভালো ব্যবহার করা হয়েছে।

এদিকে র‍্যাম এবং রম যেটি রয়েছে সেটি অনেক ভালোই পারফর্ম করবে বলে আসা করা যায়। তাছাড়াও চার্জের জন্য যেহেতু ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি রয়েছে তাই সারাদিন চার্জ ব্যাকাপ দিতে সক্ষম। তাছাড়াও অতি তাড়াতাড়ি চার্জ করার জন্য ফাস্ট চার্জিং ব্যবস্থা রয়েছে। সাথে বেস্ট সিকিউরিটি অপশন। তাই বলা যায় এই ফোনে সমস্ত কিছুই অনেক ভালো রয়েছে।

যদি খারাপ দিকের কথা বলা হয় তাহলে দেখা যাচ্ছে এই ফোনে এই দামে ব্যাক ক্যামেরা ১৩ মেগা পিক্সেল এবং সেলফি ক্যামেরা ৮ মেগা পিক্সেল দেয়া উচিৎ ছিল। এই বিষয়টি ছাড়া সমস্ত কিছু আমার কাছে ভালো লেগেছে তাই আপনি চাইলে এই ফোনটি কিনতে পারেন।

দামঃ ৳১০,৪৯০

Tecno Spark 9T

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ
Tecno Spark 9T

টেকনোর এই মোবাইল ফোনটিতে মোট Quantum Black, Burano Blue, Particle Silver, Vitality Green চারটি কালার ব্যবহার করা হয়েছে তাই আপনি আপনার পছন্দের কালারটি অতি সহজেই কিনতে পারবেন।

তাছাড়া এই ফোনে ২জি, ৩জি এবং ৪জি নেটওয়ার্ক ব্যবস্থা করা হয়েছে সাথে ব্যবহার করা যাবে ডুয়াল ন্যানো সিম কার্ড। এদিকে ফোনটির বডির ফিচার রয়েছে Minimal Notch ডিসপ্লে এবং সাথে ম্যাটেরিয়াল হিসাবে রয়েছে গ্লাস ফ্রন্ট এবং প্লাস্টিক বডি যার ডাইমেনশন রয়েছে 164.3 x 75.6 x 8.7 millimeters এর।

ফোনটির ডিসপ্লে রয়েছে 6.6 inches এবং এর রেজুলেশন থাকছে HD+ 720 x 1612 pixels (266 ppi) এবং ফিচার রয়েছে 90Hz refresh rate যার ফলে খুব তাড়াতাড়ি টাচ কাজ করে থাকবে।

ক্যামেরার ফিচার হিসাবে এই ফোনে রয়েছে Triple 13+2 Megapixel + QVGA ব্যাক ক্যামেরা যার ফিচার থাকছে Autofocus, f/1.9 aperture, quad-LED flash, HDR & more এবং এটি ব্যবহার করে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করা যাবে।

এদিকে ফোনটিতে সেলফি ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে ৩২ মেগাপিক্সেলের এবং সাথে ফিচার হিসাবে যুক্ত করা হয়েছে Dual-LED flash ও সেলফি ক্যামেরা দিয়ে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করা যাবে যেটি হবে একদম এইডি মুডে। ফোনটিতে ব্যবহার হয়েছে Lithium-polymer 5000 mAh (non-removable) ব্যাটারি এবং ফাস্ট চার্জিং এর জন্য সাথে দেয়া রয়েছে ১০ ওয়াটের চার্জার।

ফোনটির পারফর্মেন্স এর দিকে খেয়াল করলে দেখা যায় খুব ভালো পারফর্মেন্স এর জন্য ব্যবহার হয়েছে Android 12 (HiOS 8.6) অপারেটং সিস্টেম ও MediaTek Helio G37 (12 nm) চিপ্সেট এবং Octa-core, up to 2.3 GHz প্রসেসর।

সুপার ফাস্ট পারফর্মেন্স এর জন্য এই ফোনে রয়েছে ৪ জিবি র‍্যাম ও ১২৮ জিবি রম। সাথে ডেডিকেটেড মেমোরি কার্ড ব্যবহার করার মত সুবিধা। এদিকে সিকিউরিটির জন্য রয়েছে সাই ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং ফেস আনলক।

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ -ভালো এবং খারাপ দিক

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ এ আমার কাছে এই ফোনটির কোন কিছুই খারাপ লাগেনি কারণ বাজেট ফোনের মধ্যে এমন কোন ফিচার নেই যে, এই ফোনে যুক্ত করা করা নেই। ডিসপ্লে থেকে শুরু করে ক্যামেরা সমস্ত কিছু বেস্ট রয়েছে।

কারণ আপনি এই ফোনে ৬.৬ ইঞ্চির ডিসপ্লে পেয়ে যাচ্ছেন সাথে ট্রিপল ক্যামেরা যেটি থাকছে সব মিলিয়ে ১৫ মেগা পিক্সেল আর সেলফি ক্যামেরার কথা না বলি কারণ বিশেষ করে কোন ফোনে ৩২ মেগা পিক্সেল সেলফি ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়না।

র‍্যাম, রম, প্রসেসর, চিপ্সেট, অপারেটিং সিস্টেম সমস্ত কিছু বেস্ট কোয়ালিটির রয়েছে যেটি মিড রেঞ্জের ফোন গুলোতে এক সাথে পাওয়া যায়না বললেই চলে। তাই বলা যায় এই ফোনটি হতে পারে আপনার জন্য বেষ্ট একটি চয়েজ।

আমার কাছে যেহেতু কোন কিছু খারাপ লাগেনি তাই কোন কিছু বললাম না। একটি কথা বলতে পারি আপনি চাইলে এই ফোনটি কিনতে পারেন কারণ কম রেঞ্জের মধ্যে এটি অনেক ভালো ফোন।

দামঃ ৳14,990

Tecno Camon 19 Neo

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ
Tecno Camon 19 Neo

Eco Black, Ice Mirror, Dreamland Green এই তিন কালার বিশিষ্ট ফোনটি যেমন দেখতে অসাধারণ ঠিক তেমনি ফিচার গুল অনেক ভালো রয়েছে। কারণ এই ফোনে ২জি, ৩জি ও ৪জি নেটওয়ার্ক সুবিধা ও ডুয়াল ন্যান সিক কার্ড ব্যবহার করার স্লট রয়েছে। ফোনটিতে বডিতে ব্যবহার হয়েছে পাঞ্চ হোল স্টাইল ও গ্লাস ডিসপ্লে এবং প্লাস্টিক বডি যার ডাইমেনশন রয়েছে 168.8 x 76.9 x 8.5 mers এর।

ফোনটির ডিসপ্লে সাইজ রয়েছে 6.8 inches যার রেজুলেশন রয়েছে Full HD+ 1080 x 2460 pixels (395 ppi) এবং ডিসপ্লে টেকনোলজি ফিচার এয়ছে আইপিএস টাচ স্ক্রিন এবং মাল্টি টাচ ফিচার।

টেকনোর এই ফোনে ব্যাক ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে Triple 48+2 Megapixel + QVGA যেটি ব্যবহার করে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করা যাবে এবং সেলফি ক্যামেরা রয়েছে 32 Megapixel সাথে ডুয়াল ফ্ল্যাশ ফিচার এবং ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করার মত ক্ষমতা।

টেকনো মোবাইল টিতে ব্যবহার হয়েছে Lithium-polymer 5000 mAh (non-removable) ব্যাটারি এবং 18W Fast Charging যেটি ব্যবহার করে ১ ঘন্টার মধ্যে ফুল চার্জ করা সম্ভব।

ফোনটির পারফর্মেন্স হিসাবে ফোনটি রয়েছে, Android 12 (HiOS 8.6) অপারেটিং সিস্টেম এবং Mediatek Helio G85 (12 nm) চিপ্সেট ও Octa-core, 2 GHz প্রসেসর এবং স্টোরেজ হিসাবে এই ফোনে ব্যবহার হয়েছে ৬জিবি র‍্যাম এবং ১২৮ জিবি রম সাথে ডেডিকেটেড মেমোরি কার্ড ব্যবহার করার মত সুবিধা। সিকিউরিটির জন্য এই ফোনে ব্যবহার হয়েছে ফেস আনলক এবং সাইড ফিঙ্গারপ্রিন্ট।

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ -ভালো এবং খারাপ দিক

যারা টেকনো কোম্পানির ফোন গুলো তারা বিশেষ করে কেমন সিরিজের ফোন গুলো অনেক বেশী পছন্দ করে থাকে কারণ এই সিরিজের ফোন সব সময় বেটার পারফর্মেন্স বহন করে থাকে।

তাই যদি বলা হয় এই ফোনে মোট তিন কালারের বডি রয়েছে এবং সাথে রয়েছে ৬.৮ ইঞ্চির ডিসপ্লে যেটি হবে অনেক বড় মাপের এবং ব্যাক ক্যামেরা হিসাবে ব্যবহার হয়েছে ট্রিপল ক্যামেরা সাথে রয়েছে বেস্ট একটি সেলফি ক্যামেরা যেটি দিয়ে রাতেও ক্লিয়ার ছবি তোলা যাবে।

এদিকে হাই পারফর্মেন্স ব্যাটারি ও ফাস্ট চার্জার আর অপারেটিং সিস্টেম বেস্ট বলতে হবে। যেহেতু মিডিয়াটেক হ্যালিও জি৮৫ সিরিজের চিপ্সেট তাই আপনি অতি সহজেই এই ফোন দিয়ে যেকোনো প্রকারের গেমস খেলতে পারবেন।

র‍্যাম, রম এবং প্রসেসর সমস্ত কিছুই বেটার রয়েছে। তাই চাইলে আপনি এই ফোনটি কিনতেই পারেন। এই ফোনের তেমন কোন কিছু আমার কাছে খারাপ লাগেনি কিন্তু দ্বিতীয় ক্যামেরারা এক সাথে দুটি ব্যবহার হয়েছে আলাদা আলদা দিলে হয়ত আর একটু ভালো লাগতো।

সব মিলিয়ে আপনি ফোনটি কিনতে পারেন। কারণ বেস্ট পারফর্ম করবে সব সময়।

দামঃ ১৯,৯৯০

আর দেখুন

Tecno Spark 8C

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ
Tecno Spark 8C

টেকনোর এই ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে সর্বমোট তিনটি কালার Turquoise, Magnet Black, Iris Purple, Diamond Gray এর মধ্যে থেকে আপনার যেটি পছন্দ হবে সেটি আপনি কিনতে পারবেন। অন্যান্য সব ফোনের মতই এই ফনেও ব্যবহার করা হয়েছে ২জি, ৩জি, এবং ৪জি নেটওয়ার্ক সুবিধা সাথে ডুয়াল ন্যান সিম কার্ড সাপর্ট।

অন্যান্য ফিচারের দিকে তাকালে দেখা যায় এই ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে মিনিমাল নচ ডিসপ্লে যার সাইজ থাকছে 6.6 inches এবং রেজুলশন থাকছে HD+ 720 x 1612 pixels (267 ppi) সেই সাথে ডিসপ্লে ফিচার হিসাবে থাকছে আইপিএস টাচক স্ক্রিন এবং মাল্টি টাচ ফিচার। এদিকে ফোনটির বডি রয়েছে প্লাস্টিকের ও ফ্রন্ট সাইড পুরোটাই গ্লাস।

এই ফোনে ব্যবহার হয়েছে Dual 13 Megapixel + QVGA ব্যাক ক্যামেরা যেটি ব্যবহার করে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও শুট করা যাবে সেই সাথে ফ্রন্ট বা সেলফি ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে 8 Megapixel এবং সাথে এলইডি ফ্ল্যাশ ও ১০৮০ পিক্সেল ভিডিও ধারণ ক্ষমতা।

ধীর্ঘ সময় চার্জ ব্যাকাপ দেয়ার জন্য এই ফোনে রয়েছে Lithium-polymer 5000 mAh (non-removable) ও দ্রুত চার্জ করার জন্য 10W Fast Charging সুবিধা। ফোনটিতে বেটার পারফর্মেন্স এর জন্য রয়েছে Android 11 Go Edition (HiOS 7.6) অপারেটিং সিস্টেম, Unisoc T606 (12 nm) চিপ্সেট ও Octa-core প্রসেসর।

এদিকে এই ফোনে স্টোরেজ রয়েছে ২/৩ জিবি র‍্যাম এবং ৬৪/১২৮ জিবি রম সাথে ডেডিকেটেড মাইক্র এসডি স্লট। সিকিউরিটির জন্য রয়েছে ফিঙ্গার প্রিন্ট এবং ফেস আনলক।

ভালো এবং খারাপ দিক

যেহেতু এই ফোনে দুই ধরণের র‍্যাম ও রম ব্যবহার করা হয়ছে তাই অবশ্যই এই ফোনটি একটু ভালো পারফর্ম করবে বলে আমার ধারণা। যেমন আপনি এই ফোনে পাবেন ৬.৬ ইঞ্চির ডিসপ্লে সাথে মাল্টিটাচ ফিচার।

ডুয়াল ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা এবং ধীর্ঘ সময় চার্জ ব্যাকাপ দেয়ার জন্য ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি এবং ১০ ওয়াট চার্জার। বিশেষ করে এন্ড্রয়েড ১১ গো এডিশন অপারেটিং সিস্টেম ও ইউনিসকের চিপ্সেট ও অক্টাকর প্রসেসর।

বিশেষ করে এই ফোনটি লো বাজেটের মধ্যে ভালো হবে কারণ আগেই বলেছি দুই ধরণের র‍্যা ও রম ব্যবহার হয়েছে। যদিয় দামের দিকে একটু পার্থক্য রয়েছে তারপরেও সমস্ত কিছু একটু ভালো দেয়ার চেষ্টা করেছে।

তারপরেও এই ফোনের অনেক কিছু খারাপ লেগেছে আমার কাছে যেমন চিপ্সেট তেমন ভালো পারফর্ম করবে বলে আমার মনে হয়না এবং সাথে প্রসেসরের সিরিজটি উল্লেখ নেই।

তাছাড়া সমস্ত কিছু বেটার রয়েছে আপনি চাইলে কিনতে পারেন।

দামঃ ৳১৩,৪৯০ ৩/৬৪ জিবি এবং ৳১৪,৯৯০ ৪/১২ জিবি

Tecno Pop 5 LTE

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ
Tecno Pop 5 LTE

আপনি মোট তিনটি কালারে এই ফোনটি পেয়ে যাবেন আর কালার গুলোর মধ্যে রয়েছে Ice Blue, Deepsea Luster, Turquoise Cyan এবং এই ফোনে আপনি ২জি, ৩জি এবং ৪জি সেবার পাশাপাশি ডুয়াল ন্যান সিক কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।

এদিকে এই ফোনে ব্যবহার করা হয়েছে মিনিমাল নচ ডিসপ্লে যার সাইজ রয়েছে 6.52 inches এবং রেজুলেশন থাকছে HD+ 720 x 1600 pixels (269 ppi) ও সাথে আইপিএস টাচ স্ক্রিন ও মাল্টি টাচ ফিচার।

এই ফোনে ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে Dual 8 Megapixel + AI যেটি ব্যবহার করে আপ নি ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করতে পারবেন সেই সাথে সেলফি ক্যামেরা ব্যবহার হয়েছে 5 Megapixel যেটি দিয়ে ১০৮০ পিক্সেল মুডে ভিডিও করা যাবে আর রাতে সেলফি তোলার জন্য দেয়া রয়েছে এলইডি ফ্ল্যাশ।

চার্জিং পারফর্মিং এর জন্য থাকছে Lithium-polymer 5000 mAh (non-removable) ব্যাটারি এবং এবং 10W Fast Charging চার্জার যেটি ব্যবহার করে অতি তাড়াতাড়ি চার্জ করতে পারবেন।

ফোনটিতে অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার হয়েছে Android 11 (HiOS 7.6) ও চিপ্সেট রয়েছে Unisoc SC9863A (28nm) এবং প্রসেওসর থাকছে Octa-core, up to 1.6 GHz তাছাড়াও এই ফোনে স্টোরেজ হিসাবে থাকছে ২/৩ জিবি র‍্যাম এবং ৩২ জিবি রম এবং আলাদাভাবে মাইক্র এসডি কার্ড ব্যবহার করার মত সুবিধা। এমনকি প্রাইভেসি প্রটেকশনের জন্য রয়েছে ফিঙ্গার প্রিন্ট ও ফেস আনলক।

ভালো এবং খারাপ দিক

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ এ সব মিলিয়ে দেখলে এই ফোনে যে সমস্ত ফিচার যুক্ত করা রয়েছে সমস্ত কিছু অনেক ভালোই রয়েছে কারণ এই ফোনে রয়েছে ৬.৫২ ইঞ্চির ডিসপ্লে সাথে মাল্টি টাচ ফিচার এবং এইড রেজুলেশন।

তাছাড়াও ৮ মেগা পিক্সেল ক্যামেরার সাথে এইআই ক্যামেরা এবং হাই পারফর্মেন্স ব্যাটারি ও সাথে ফাস্ট চার্জিং ব্যবস্থা। অপারেটিং সিস্টেমও ভালোই রয়েছে স্তাহে প্রসেসরও অনেক ভালোই পারফর্ম করতে পারবে।

যদি ফোনটির খারাপ দিকের কথা বলা হয় দেখা যায় এই ফোনে ব্যাক ক্যামেরা ৮ মেগা পিক্সেল ব্যবহার না করে ১৩ দিলে অনেক ভালো হত এমনকি চাইলে ব্যবহার করা যেত। তাছাড়াও এই ফোনের ৩জিবি র‍্যামের সাথে ৩২জিবি রম বিষয়টি আমার কাছে একদম বাজে লেগেছে।

তাছাড়া সমস্ত কিছু ভালোই রয়েছে আপনি চাইলে কিনতে পারেন।

দামঃ ৯,৯৯০ ২/৩২ জিবি ও ১২,৪৯০ ৩/৩২ জিবি

Tecno Spark Go 2022

Tecno Spark Go 2022

এই ফোনটি অনেকের চাহিদার উর্ধে থাকার কারণে নতুন করে আবার ২০২২ সালে রিলিজ করা হয়েছে অনেক আপডেট করে কিন্তু কালারের পরিবর্তন হয়নি। এই ফোনে Turquoise Cyan, Atlantic Blue এই দুটি কালার এভাইলেবল রয়েছে।

তাছাড়া এই ফোনে অন্য সব ফোনের মত ২জি, ৩জি ও ৪জি নেটওয়ার্ক রয়েছে এবং সাথে আছে ডুয়াল ন্যানো কার্ড ব্যবহার করার মত সুবিধা। রয়েছে মিনিমাল নচ 6.52 inches ডিসপ্লে এবং সাথে রেজুলেশন থাকছে HD+ 720 x 1600 pixels (269 ppi) ও আইপিএস টাচ স্ক্রিন সাথে মাল্টি টাচ ফিচার।

এই ফোনে ব্যবহার হয়েছে Dual 13 Megapixel + AI Lens ব্যাক ক্যামেরা এবং 8 Megapixel সেলফি ক্যামেরা। ব্যাক ক্যামেরা ব্যবহার করে ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করা যাবে এবং সেলফি ক্যামেরা দিয়ে তেমন ভালো কোয়ালিটি ভিডিও রেকর্ড করা যাবেনা।

এদিকে ফোনের চার্জিং ক্যাপাসিটি জন্য ব্যবহার করা হয়েছে 5000mh নন রিমুভাল ব্যাটারি এবং সেই সাথে যদি পারফরমেন্সের দিকে লক্ষ্য করা যায় তাহলে এই ফোনটিতে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড 11 জন এবং সেই সাথে রয়েছে মিডিয়াটেক হেলিও a22 প্রসেসর ব্যবহার করা আছে quad-core 1.3 GHz

সেই সাথে যদি স্টোরেজের কথা বলা হয় তাহলে দেখা যায় এতে ব্যবহার করা হয়েছে 2gb রেম এবং সেইসাথে ব্যবহার করা হয়েছে 32 জিবি রম তাছাড়াও 256gb পর্যন্ত ডেডিকেটেড মেমোরি ব্যবহার করতে পারবেন।

শেষের দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় কোনটিতে ব্যবহার হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং সেইসাথে ফেস আনলক আপনি পেয়ে যাবেন।

ভালো এবং খারাপ দিক

মিড রেঞ্জের ফোন গুলোতে যে সমস্ত ফিচারগুলো যুক্ত করতে হয় এই ফোনটিতে আপনি সমস্ত বিচার পেয়ে যাবেন । কারণ এই ফোনটিতে আপনি 6 দশমিক 52 ইঞ্চি ডিসপ্লে পাচ্ছেন এবং সেইসাথে সেই সাথে থাকতে ফুল এইচডি 720 ডিসপ্লে এবং ফিচারের কথা বলা হয় তাহলে আপনি আইপিএস টাচস্ক্রিন মাল্টিটাচ পাচ্ছেন সেইসাথে 2gb রেম এবং 32gb রম বিশেষ ক্ষেত্রে দেখা যায় যে সমস্ত ফোন গুলো রেখে সমস্ত ফোন গুলো ধরতে পারা থাকে তাহলে আপনি এই ফোনে পাচ্ছেন ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং সেইসাথে ফেস আনলক সব মিলিয়ে দেখা যায় তাহলে আপনার জন্য বেটার একটি পারফরম্যান্স দিয়ে দিতে পারবে।

আমার কাছে কোন দিক খারাপ লাগেনি এখন আপনার কাছে যদি কোন দিক খারাপ লাগে তাহলে আপনার কেনার প্রয়োজন নেই আর যদি আপনার সমস্ত দিকগুলো ফোনটির ভালো লাগে তাহলে অবশ্যই ফোনটি কিনতে পারেন।

দামঃ Official ✭ ৳9,990 2/32 GB

Tecno Spark 8 Pro


Tecno Spark 8 Pro

কনফিগারেশন

কনফিগারেশনের কথা বলতে গেলে এই ফোনে অন্যান্য ফলের মতো 2g, 3g, 4g এবং সেইসাথে ডুয়াল ন্যানো সিম ব্যবহার করার মত সুবিধা যুক্ত করা হয়েছে।
আর যদি ডিসপ্লের কথা বলা হয় তাহলে এই ফোনে ব্যবহার হয়েছে 6.5 inches ডিসপ্লে যার রেজুলেশন থাকছে HD+ 720 x 1600 pixels (270 ppi) এবং মিনিমাল নচ ডিসপ্লে ব্যবহার করা আছে সেইসাথে মাল্টিটাচ ফিচার।

এই ফোনটির ক্যামেরার দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ত্রিপল ৪৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা এবং সেটি দিয়ে আপনি চাইলে 1080 পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করতে পারবেন এবং এদিকে ফ্রন্ট ক্যামেরা বা সেলফি ক্যামেরা হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল ক্যামেরা যেটি আপনি অনায়াসে 1080 পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করতে পারবেন।

ধারণক্ষমতার কথা বলতে যদি যায় তাহলে ফোনটিতে ব্যবহার করেছে lithium-polymer 5000mh ব্যাটারি চার্জিং করার জন্য রয়েছে 33 ওয়াট ফাস্ট চার্জার অর্থাৎ আপনি চাইলেই 30 থেকে 35 মিনিটের মধ্যে আপনার ফোনে ফুল চার্জ করে ফেলতে পারবেন।

বিষয় হচ্ছে পারফরমেন্সে বেটার না থাকে তাহলে কিন্তু কোনভাবেই ভালোভাবে কাজ করতে পারে না আর সেদিকে লক্ষ করে ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে অ্যানড্রয়েড 11 অপারেটিং সিস্টেম এবং সেইসাথে এই ফোনটিতে চিপসেট হিসেবে যুক্ত রয়েছে Mediatek Helio G85 এবং প্রসেসর ব্যবহার করেছে Octa-core, 2 GHz

এদিকে যদি ফোনটির স্টোরেজের কথা বলা হয় তাহলে ফোনটিতে আপনি দুই ধরনের র‍্যাম পাবেন একটি হচ্ছে 4gb অন্যটি 6gb এবং রম 64gb সেই সাথে আলাদাভাবে মেমোরি কার্ড ব্যবহার করতে পারবেন।

সিকিউরিটির জন্য আপনি ফোন টিতে পারচ্ছেন ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং ফেস আনলক।

ফোনটির ভালো এবং খারাপ দিক

আমার কাছে এই ফোনটির কোন অংশই খারাপ লাগেনি কারন মিড রেঞ্জের যে সমস্ত ফোন গুলো রয়েছে সমস্ত ফোন গুলো দেখা যায় যে সমস্ত কনফিগার দ্বারা যুক্ত থাকে ফোনটি সমস্ত কিছু রয়েছে কারণ ফোনটির দাম অনুযায়ী ফোনটিতে রেম, রম, ডিসপ্লে, প্রসেসর এ সমস্ত কিছু বেটার রয়েছে আপনি চাইলে অনায়াসে কিনতে পারেন তাছাড়া ফোনটি সিকিউরিটির জন্য ফেস আনলক এবং সেইসাথে আপনি পাচ্ছেন ফিঙ্গারপ্রিন্ট অপশন।

সব মিলিয়ে যদি বলতে যাই তাহলে আমার কাছে ফোন টা অনেক বেটার লেগেছে তারপরও আপনাকে আমি কিছু খারাপ দিক বলে দিচ্ছি কারণ প্রতিটি বিষয়ের একটি খারাপ দিক থাকে সেটা হচ্ছে যে ফোনটিতে 4gb র‍্যাম 6gb রম ব্যবহার করা হয়েছে সে অনুযায়ী 6gb র‍্যাম 128gb রম ব্যবহার করা হতো তাহলে বেটার একটি ফোন হতো।

তাছাড়া সমস্ত বিষয় অনেক ভাল হয়েছে আপনি চাইলে ফোনটি কিনতে পারেন।

দামঃ Official ✭ ৳16,990 4/64 GB ৳17,990 6/64 GB

Tecno Spark 7

Tecno Spark 7

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ -টেকনো এক্সপার্ট সেভেন মডেলের ফোনটিতে আপনি দুই ধরনের কালার পেয়ে যাবেন Spruce Green, Magnet Black এবং সেইসাথে ফোনটিতে নেটওয়ার্ক হিসেবে যুক্ত রয়েছে 2g ,3g এবং 4g ভোলটিই সেই সাথে আপনার ফোনে ডুয়াল ন্যানো সিম ব্যবহার করতে পারবেন।

ফোণটির বডির দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় ফোনটিতে রয়েছে মিনিমাল নচ ডিসপ্লে এবং সেইসাথে ডিসপ্লের সাইজ রয়েছে 6.5 ইঞ্চি এবং এবং ডিসপ্লে রেজুলেশন রয়েছে 720*1600 শো পিক্সেল সেইসাথে ডিসপ্লে তে টেকনোলজি হিসেবে যুক্ত রয়েছে আইপিএস এলসিডি টাচ স্ক্রিন এবং মাল্টিটাচ ফিচার।

ক্যামেরার কথা বলতে গেলে ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা এবং সেইসাথে ব্যবহার করা হয়েছে 8 মেগাপিক্সেল সেলফি ক্যামেরা আপনি ব্যাক ক্যামেরা দিয়ে অনায়াসে 1080 পিক্সেল এবং সামনের ক্যামেরা দিয়ে আপনি একইভাবে 1080 পিক্সেলে ভিডিও তৈরি করতে পারবেন।

ফোনটির চার্জিং এর দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় ফোনটিতে ব্যবহার হয়েছে 6000 এমএইচ ব্যাটারি এবং ফাস্ট চার্জিং এর জন্য ব্যবহার করা 33 ওয়াট ফাস্ট চার্জিং।

ফোনটিতে বেটার পারফরম্যান্স হয় এজন্য ব্যবহার করা হয়েছে এন্ড্রয়েড 11 অপারেটিং সিস্টেম এবং সেই সাথে রয়েছে মিডিয়াটেক হেলিও g70 চিপ্সেট এবং লক্ষ করলে দেখা যায় ফোনে তে ব্যবহার করা হয়েছে অক্টা কোরের প্রসেসর।

সেই সাথে স্টোরেজের কথা বলা হয় তাহলে দেখা যাচ্ছে ফোনটিতে দুইটি ধরনের র‍্যাম রয়েছে একটি হচ্ছে 3gb অন্যটি হচ্ছে 4gb এবং দেখা যাচ্ছে ৬৪ রম ব্যবহার করা হয়েছে এবং আপনি ফোনের সাউন্ড কোয়ালিটির দিক দিয়ে অনেক বেটার পারফর্ম করতে পারবেন।

ফোনটিতে সিকিউরিটির কথা বলতে চাই তাহলে, ফোনটিতে আপনি ফিঙ্গারপ্রিন্ট পেয়ে যাবেন এবং সাথে ফেস আনলক।

আরও দেখুন

ভালো এবং খারাপ দিক

মিড রেঞ্জের ফোন হিসেবে ফোনটি আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে কারন বিশেষ করে ডিসপ্লেটি ব্যবহার করা হয়েছে 6.5 ইঞ্চি এবং সেইসাথে মাল্টিটাচ ফিচার। তাছাড়াও এই ফোনটির ব্যটারির কথা না বললেই নয় একদিন চার্জ করলে তিনদিন চলতে পারবে।

পারফরমেন্সের দিকে লক্ষ্য করা যায় তাহলে দেখা যাচ্ছে, এই ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে দুইটি ধরনের র‍্যাম একটি হচ্ছে 3gb ও অন্যটি 4gb এবং রম ব্যবহার করা হয়েছে 64gb আর বিশেষ ক্ষেত্রে আপনার ফোনটি ভালো পারফর্ম করবে এর কারণ হচ্ছে ব্যবহার করা হয়েছে মিডিয়াটেক হেলিও g70 চিপ্সেট।

খারাপের কথা বলতে চাই তাহলে দেখা যাচ্ছে এই ফোনটিতে 3gb র‍্যাম এর ক্ষেত্রে 64gb রম বেটার রয়েছে কিন্তু 4gb রম 64gb রম এটা কোনভাবেই যায় না এটি উচিত ছিল 4gb র‍্যামের সাথে 128gb রম ব্যবহার করার। তাছাড়া সমস্ত কিছু ভাল রয়েছে আপনি চাইলে অনায়াসে ফোনটি কিনতে পারেন।

দামঃ Official ✭ ৳11,490 3/64 GB ও ৳12,990 4/64 GB

Tecno Camon 17P

Tecno Camon 17P

কনফিগারেশন

টেকনোর এই ফোনটিতে আপনি পাচ্ছেন টুজি, থ্রিজি এবং ফোরজি নেটওয়ার্ক সুবিধা সেইসাথে ডুয়াল সিম ব্যবহার করার মতো ডেডিকেটেড স্লট।

ফোনটির বডির স্টাইল এর দিকে দেখলে আপনি দেখবেন এটাতে ব্যবহার করা হয়েছে Punch-hole আর এটি বর্তমান সময়ের সবচাইতে পপুলার ডিসপ্লে গুলোর মধ্যে একটি তাছাড়া ম্যাটেরিয়াল হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে গ্লাস ফ্রন্ট এবং সেইসাথে প্লাস্টিকের বডি।

আপনাকে যদি ডিসপ্লের কথা বলতে যাই তাহলে দেখা যাচ্ছে এই ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 6.8 ইঞ্চি ডিসপ্লে রেজুলেশন থাকছে ফুল এইচডি 1080*2460 পিক্সেল এবং টেকনোলজি যুক্ত করা হয়েছে আইপিএস এলসিডি টাচ স্ক্রিন এবং সেইসাথে ফিচার হিসেবে রয়েছে multi-touch ফিচার এবং সেই সাথে 90Hz refresh rate

ফোনটির ক্যামেরার দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যায় ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে Quad 64+2+2 Megapixel + AI Lens ক্যামেরা।

আর আপনি এই ক্যামেরা ব্যবহার করে 1080 পিক্সেলে ভিডিও ধারণ করতে পারবেন সেই সাথে যদি সেলফি ক্যামেরার কথা বলা হয় তাহলে দেখা যাচ্ছে এটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 16-megapixel সেলফি ক্যামেরা এবং সেইসাথে ভিডিও রেকর্ডিং এর জন্য 1080 পিক্সেল ধারণক্ষমতা।

ব্যাটারি পারফরমেন্সে দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যাচ্ছে এটাতে ব্যবহার করা হয়েছে lithium-polymer 5000mAh নন রিমুভাল ব্যাটারি এবং সেইসাথে দ্রুত চার্জ করার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে 18 ওয়াট ফাস্ট চার্জিং।

পারফরম্যান্সের দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যাচ্ছে এটির অপারেটিং সিস্টেম রয়েছে Android 11 (HiOS) এবং ফোনটিতে চিপসেট হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে Mediatek Helio G85 (12 nm) এবং ফোনটিতে প্রসেসর হিসেবে ব্যবহার করা Octa-core, 2 GHz

স্টোরেজের দিকে লক্ষ্য করলে দেখা যাচ্ছে এই ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে 6 জিবি রেম এবং সেইসাথে 128gb রম এবং আপনি চাইলে আলাদাভাবে ডেডিকেটেড মেমোরি ব্যবহার করতে পারবেন তাছাড়া এই ফোনটির সিকিউরিটির জন্য রয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং ফেস আনলক।

ভালো এবং খারাপ দিক

আমার কাছে অনেক ভাল লেগেছে, কারণ এতে 6.28 ইঞ্চি ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে এবং ক্যামেরার দিকে খেয়াল করা যায় তাহলে দেখা যাচ্ছে ফোনটিতে 64 মেগাপিক্সেল এবং 16 মেগাপিক্সেল ক্যামেরা ব্যবহার করা হয়েছে এদিকে বেস্ট চার্জিং পারফর্ম করবে এবং খুব দ্রুত চার্জ করার জন্য 18 ওয়াট এর ফাস্ট চার্জার দেয়া আছে।

সব মিলিয়ে দেখতে গেলে আমার কোন কিছু খারাপ লাগেনি আপনি চাইলে ফোনটি সমস্ত কিছু দেখে ভেবেচিন্তে কিনতে পারেন।

দামঃ ৳18,990.00

টেকনো মোবাইল প্রাইস ইন বাংলাদেশ

শেষ কথা

আসা করছি রিভিউটি আপনার কাছে অনেক ভালো লেগেছে। মনে রাখবেন আপনি যখন একটি ফোন চয়েজ করবেন তখন সেই ফোনের শুধু দাম দেখে নয় কনফিগারেশন দেখে চয়েজ করবেন।

তা যদি না করেন তাহলে সেই ফোন বেশীদিন ব্যবহার করতে পারবেননা। তাই সমস্ত তথ্য জেনে তারপর ফোন কিনতে যাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.