রেডমি 9 পাওয়ার বাংলাদেশ প্রাইস ২০২২

বিশেষ করে শাওমির রেডমি সিরিজের যে সমস্ত ফোন গুলো রয়েছে তার মধ্যে এই ফোনটির চাহিদা অনেক বেশী দেখা গিয়েছে। আর তারই কারণে আপনি যদি গুগল থেকে সার্চ করেন রেডমি 9 পাওয়ার বাংলাদেশ প্রাইস সম্পর্কে সার্চ করে থাকেন এবং এই পেজে এসে থাকেন তাহলে আমি মনে করি আপনি সঠিক পেজটি ওপেন করেছেন।

কারণ আমি এই ফোনের সমস্ত বেস্ট ফিচার গুলো নিয়ে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করার চেষ্টা করবো। যেমন ফোন কফিগারেশন ও সেই সাথে ফোনটির ভালো ও খারাপ দিক গুলো নিয়ে বলে দেয়ার চেষ্টা করবো।

যেন আপনার এই ফোন সমর্পকে সমস্ত কিছুই বিস্তারিতভাবে জানা হয়ে যায় এবং আদৌ আপনার এই ফোনটি কেনা উচিৎ কিনা সেটিরও পরিষ্কার ধারণা পেয়ে যাবেন। তাই একটু সময় নিয়ে এই রিভিউ পেজটি দেখার চেষ্টা করুন।

রেডমি 9 পাওয়ার বাংলাদেশ প্রাইস

সমস্ত ফিচার গুলো প্রথমে ভালোভাবে দেখেনিন এবং তারপর ফোনটি ক্রয় করার চেষ্টা করুন।

রেডমি 9 পাওয়ার বাংলাদেশ প্রাইস
অফিসিয়াল দাম৪/৬৪জিবি –১৫৯৯০ টাকা মাত্র
৬/১২৮জিবি –১৮৯৯৯ টাকা মাত্র
ডিসপ্লে৬.৫৩ ইঞ্চি ( ফুল এইচডি ১০৮০*২৩৪০ পিক্সেল )
ক্যামেরাব্যাক- ৪৮+৮+২+২ মেগাপিক্সেল ও সেলফি ৮মেগাপিক্সেল
অপারেটিং সিস্টেমএন্ড্রয়েড ১০
চিস্পেটকুয়ালকম স্নাপড্রাগন ৬৬২
প্রসেসরঅক্টাকোর আপটু ২.০জিএইচজি
র‍্যাম৪/৬ জিবি
রম৬৪/১২৮ জিবি
ব্যাটারি৬০০০ ওয়াট ও ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জার
লকফেস আনলক ও ফিঙ্গার প্রিন্ট

👉ঘরে বসে মোবাইলে আয় করার বিষয় সম্পর্কে জানতে এখানে ক্লিক করুন

রেডমি 9 পাওয়ার বাংলাদেশ প্রাইস বিস্তারিত আলোচনা

রেডমি 9 পাওয়ার বাংলাদেশ ফোনটিতে অন্যান্য সব স্মার্ট ফোনের মতই ২জি, ৩জি ও ৪জি নেটওয়ার্ক সুবিধা যুক্ত করা রয়েছে এবং সেই সাথে ডুয়াল ন্যানো সিম কার্ডও ব্যবহার করা যাবে।

তাছাড়াও এই ফোনটিতে ব্লুটুথ ভার্সন v5.0, A2DP, LE ও ল্যান dual-band, Wi-Fi direct, Wi-Fi hotspot এর সুবিধা রয়েছে এবং সেই সাথে জিপিএস, এফএম রেডিও ও অন্যান্য ফিচারতো রয়েছেই।

এই ফোনটিতে ওটিজি সাপর্টের পাশাপাশি ইউএসবি টাইপ সি পোর্ট ব্যবহার করা হয়েছে। এবং বেস্ট স্টাইলের জন্য থাকছে মিনিমাল নচ ডিসপ্লে যার সাইজ থাকছে ৬.৫৩ ইঞ্চি ও সেই সাথে প্রটেকশনের জন্য ব্যবহার হয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৩

টাচ স্ক্রিনের প্রযুক্তি হিসাবে ব্যবহার হয়েছে আপিএস এলসিডি ডিসপ্লে ও সেই সাথে মাল্টিটাচ ফিচার। আর এদিকে ফোনটিতে মোট Quad 48+8+2+2 Megapixel এর চারটি ব্যাক ক্যামেরা থাকছে।

সেই সাথে এই ফোনের সেলফি ক্যামেরা হিসাবে যুক্ত রয়েছে 8 Megapixel এর এইচডি রেজুলেশন ক্যামেরা। আর এই দুইটি ক্যামেরা দিয়েই ১০৮০ পিক্সেলে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে।

ফোনটির পারফর্মেন্স এর জন্য রয়েছে এন্ড্রয়েড ১০ এবং সেই সাথে Qualcomm Snapdragon 662 (11 nm) এর চিস্পেট। তাছাড়াও প্রসেসর হিসাবে ব্যবহার হয়েছে Octa core, up to 2.0 GHz এর।

যদি স্টোরেজ এর কথা বলতে চাই তাহলে দেখতে পাই এই ফোনের সাথে ৪/৬ জিবি র‍্যাম ও ৬৪/১২৮ জিবি রম ব্যবহার হয়েছে এমনকি আলাদাভাবে মেমোরি কার্ড ব্যবহার করার মত সুযোগতো আছেই।

চার্জিং পারফর্মিং এর জন্য এই ফোনে থাকছে ৫০০০ এমএইচ নন রিমুভাল লিথিয়াম পলিমারের ব্যাটারি ও চার্জ করার জন্য ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জার ও সেই সাথে ২.৮ ওয়াট রিভার্স চার্জ সুবিধা।

সিকিউরিটির জন্য পাওয়া যাচ্ছে ফিঙ্গার প্রিন্ট ও ফেস আনলক। আর এটিই ছিল এই ফোনের সমস্ত ফিচার।

👉রেডমি ৯ ডুয়াল ক্যামেরা ফোনের দাম ও বিস্তারিত জানতে এখানে ক্লিক করুন

রেডমি 9 পাওয়ার বাংলাদেশ প্রাইস -ভালো এবং খারাপ দিক

বাজার মূল্য অনুযায়ী যদি বলা হয় তাহলে বলতে পারি এই ফোনটি আপনার জন্য বেটার একটি ফোন হতে চলেছে কারণ এই ফোনের দুই ধরণের দাম রয়েছে সেই সাথে আলদা দামের সাথে আলদা রেম ও রম ব্যবহার হয়েছে।

তাছাড়াও বড় মাপের একটি ফুল এইচডি ডিসপ্লে রয়েছে। এদিকে অপারেটিং সিস্টেম থেকে শুরু করে চিপ্সেট ও প্রসেসর সমস্ত কিছুই অনেক ভালো মানের থাকছে।

ফোনটিতে রয়েছে ৫০০০ এমএইচ ব্যাটারি যা সারাদিন চার্জ ধরে রাখতে সক্ষম। ফাস্ট চার্জিং ব্যবহার করে ১ ঘন্টার বা তার কম সময়ে চার্জ করার মত সুবিধা যুক্ত করা রয়েছে।

সিকিউরিটির জন্য ফিঙ্গার প্রিন্ট পাওয়া যাচ্ছে পাওয়ার বাটনের সাথেই। তাই বলতে পারি সব মিলিয়ে ফোনটির সমস্ত কিছুই ভালো রয়েছে।

এখন যদি খারাপের কথা বলি তাহলে আমার কাছে তেমন খারাপ কিছু লক্ষ্যনীয় হয়নি। শুধু মাত্র অপারেটিং সিস্টেম এর বিষয়টি আমার কাছে খারাপ লেগেছে কারণ এই সময়ে তারা ফোনটির অপারেটিং সিস্তেম আপডেট করেও বাজারে নিয়ে আসতে পারতো।

এই সমস্ত বিষয় ছাড়া সমস্ত কিছুই বেস্ট তাই চাইলে আপনি ফোনটি কিনতে পারেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *